প্রথম সংখ্যা

আমিষ ভোজন
আচার্য রামেন্দ্রসুন্দর ত্রিবেদী

আমিষ ভোজনের কর্ত্তব্যতা লইয়া অনেক বিচার হইয়া গিয়াছে। বর্ত্তমান প্রবন্ধেও যে মীমাংসা হইবে, লেখকের এরূপ দুরাশা নাই। তিন দিকে হইতে এই বিচারে প্রবৃত্ত হইতে হয়। শরীর রক্ষার কথা বিজ্ঞানের বিষয়, খরচের কথা অর্থশাস্ত্রের বিষয়, তারপর ধর্মাধর্মের কথা।
বিজ্ঞানের কথাটা আগে শেষ করা যাক। সংক্ষেপে বলা যাইতে পারে, মনুষ্যশরীরের উপাদান অনেকটা কয়লা, অনেকটা জল, খানিকটা ছাই।...

হয়তো এখন জীবাশ্ম হয়ে আছি
নবনীতা দেবসেন

দুগগা দুগগা ! এ পথে আমি পা ফেলিনি কোনোদিন, অভিজিৎ-এর স্বপ্নের মায়ায় ভুলে এসে পড়েছি। বিজ্ঞান আমার ভয়ের ঠাঁই। সেই জন্যেই অভিজিৎ-এর উদ্দেশ্যটা আমার কাছে জরুরি। বিজ্ঞানকে ঘরের লোক ক’রে নিতে হলে, তাকে ঘরের ভাষায় চিনতে হবে। বিজ্ঞানের সঙ্গে মাতৃভাষার যোগ ঘটাতে নজর দিয়ে গিয়েছেন আমাদের বাঙালির উচ্চশিক্ষার...

প্রশান্তচন্দ্র মহলানবীশ-এক অনন্য ব্যক্তিত্ব
বিকাশ সিংহ

বিংশ শতাব্দীর প্রথমার্ধে প্রেসিডেন্সি কলেজে পদার্থবিজ্ঞানের দুই উজ্জ্বল তারকার সান্নিধ্যে এসেছিলুম প্রায় কৈশোরকাল থেকেই – এঁরা হলেন সত্যেন্দ্রনাথ বোস আর প্রশান্তচন্দ্র মহলানবীশ।অবশ প্রশান্তচন্দ্র মহলানবীশের সাক্ষাৎ পেয়েছিলাম অনেকটা পরে, যখন আমি লণ্ডনের কিংগসে গবেষণার কাজে কয়েক ধাপ এগিয়ে গেছিলুম।...

কেন সমাজের কাছে বিজ্ঞানকে পৌঁছে দেওয়া আমাদের কর্তব্য
পার্থপ্রতিম মজুমদার

বিজ্ঞান গবেষণা’র সাথে আমি অনেকদিন যুক্ত আছি | অনেকেই এজন্য আমাকে বৈজ্ঞানিক বলে | সে ঠিক আছে | আমি যখন ছোট ছিলাম তখন আমি বইয়ের পাতায় বৈজ্ঞানিকদের ছবি দেখতাম | বলা হতো, ওরে বাবা, ওনারা বৈজ্ঞানিক, ওনারা তো দেবতুল্য...

প্রাইভেটে পাবলিকের স্যারেন্ডার ! একটি নির্মীয়মাণ মহাকাব্যের কয়েক কলি
অভিজিৎ চৌধুরী

রাজা হরিশচন্দ্র ‘মহারাজা’ হয়েছিলেন দান ধ্যানের জোরে। বসন-আসন, ধন-দৌলত, বিষয়-আশয় ইত্যাদি রাজধর্মের সব বৈভব ছাড়তে ছাড়তে একসময় তিনি ছেড়েছিলেন পরিবার-পরিজন, প্রজাকুল এবং শেষমেশ সিংহাসন। তাঁর এই অক্ষয় জীবনের শেষ ক’টা দিন কেটেছিল মানবজীবনের শেষ ইস্টিশানে- যার নাম শ্মশান। তাঁর প্রজাদের কী হাল হয়েছিল মহাকাব্যে লেখা নেই- যেমন লেখা নেই এই রাজন্যের...

ঔপনিবেশিক বাংলায় বিশ্ববিজ্ঞানের উন্মেষ
আশিষ লাহিড়ী

ভারতে আধুনিক বিশ্ববিজ্ঞানের সূত্রপাত হওয়া না-হওয়া সম্বন্ধে গোপাল হালদারের মন্তব্যটি স্মরণীয়। ‘সম্রাট আকবরের কাল পর্যন্ত ধরিলে মনে করিতে পারি, উহা (ভারত) এলিজাবেথের যুগ হইতে গৌরবে ম্লান নয়। …তবু এক শতাব্দী পার হইতেই দেখি – ভারতবর্ষ একেবারে ম্লান। ইহার কারণ অবশ্য আছে। কিন্ত যে কারণটি সহজেই চোখে পড়ে তাহা বৈজ্ঞানিক ঔৎসুক্য।...

‘হলোকাষ্ট’- এর নির্মম ল্যাবরেটরিতে
সংগ্রাম গুহ

আমস্কালপ্লাটজ্‌ স্মৃতিসৌধ, ওয়ারশ পোলান্ড। সকাল ৬টা। ধূসর সকালের অস্পষ্ট দিগন্তরেখায় অসংখ্য মানুষের সিল্যুয়েট। স্টভকি্‌ আর জিকা স্ট্রিটে তখন অনেক গাড়ির ভীড়। নিঃশব্দে! তিন দিকে বড় বড় হোটেল, মাঝখানে প্রায় মূখ গুমড়ে দাঁড়িয়ে থাকা স্মৃতিসৌধের সাদা-কালো মার্বেলের দেওয়ালে পাক খেতে খেতে হারিয়ে যাওয়া বাতাসের শব্দে যেন অনেক অভিমান।...

বিজ্ঞান ও মানব সভ্যতা
সন্তোষ রাণা

আদিম মানবের নির্ভরতা ছিল শিকার ও সংগ্রহের ওপর। প্রকৃতিতে যে প্রাণীদের অস্তিত্ব ছিল তাদের মাংস এবং যে সকল উদ্ভিদ নিজে থেকে জন্মাত তাদের কাণ্ড, মূল, ফুল, ফল, বীজ ও পাতা ছিল মানুষের খাদ্য। সেই আদিম যুগেও মানুষকে অভিজ্ঞতা থেকে কিছু জিনিস শিখতে হয়েছিল।...

ও-আর-এস-এর প্রায়োগিক সাফল্যের কাহিনি
দিলীপ মহলানবীশ

১৯৭১ সালের মে মাসের শেষাশেষি সময়ের কথা। সে সময়ের পূর্ব-পাকিস্তান যা এখনকার বাংলাদেশ, তখন মহাপ্রলয়ের মাঝে। রক্তক্ষয়ী গৃহযুদ্ধের মাঝখানে ঘটিবাটি ছেড়ে, সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে উদ্বাস্তু হয়েছেন প্রায় ষাট লক্ষ মানুষ । একদিকে খিদে, তাছাড়া আশ্রয় আর সুরক্ষার একান্তই অভাব।...

লাইগো ও মহাকর্ষীয় তরঙ্গ
অনির্বাণ কুণ্ডু

আপনারা সকলেই নিশ্চয়ই পড়েছেন বা সোশ্যাল মিডিয়ায় দেখেছেন, গত ১১ই ফেব্রুয়ারি মহাকর্ষীয় তরঙ্গ পৃথিবীর পরীক্ষাগারে প্রথমবার টের পাওয়া গেছে বলে বিজ্ঞানীরা ঘোষণা করেছেন। খবরটা বেশ কিছুদিন থেকেই হাওয়ায় ভাসছিল, অবশেষে ঐদিন ভারতীয় সময় রাত নটায় সাংবাদিক সম্মেলন...

ঘরের কাছের প্রতিবেশী প্রক্সিমা বি
গৌতম গঙ্গোপাধ্যায়

গত ২৪শে আগস্ট ইউরোপিয়ান সাদার্ন অবজার্ভেটরি ঘোষণা করেছে আমাদের সবচেয়ে কাছের যে তারকা প্রক্সিমা সেন্টরি (বা সেন্টরাই, যেমন খুশি উচ্চারণ বেছে নিন), তার চারপাশে একটা গ্রহ খুঁজে পাওয়া গেছে। গ্রহটার নাম দেওয়া হয়েছে প্রক্সিমা বি।...

সাপ-অদ্ভুত সমাহার
সৈকত সরকার

সাপ হল সরীসৃপদের মধ্যে এক ধাঁধা লাগানো শ্রেণি যাদের মধ্যে ৩৫০৯টি জীবিত ও ২৭৪টি লুপ্ত প্রজাতি আছে, যাদের আবার ৫৩৯টি জীবিত ও ১২টিকে লুপ্ত গণ-এ ভাগ করা যায়। (ভ্যান ওয়ালচ, কেনেথ এল. উইলিয়ামস, জেফ বাউন্ডি, ২০১৪)।...

বিজ্ঞান-দৃষ্টি গড়ে তোলার কালক্রম
উজ্জ্বল কুমার মুখোপাধ্যায়

ভাষার কথা ভাবি; ভাবতে ভাবতে ভাসি ভাষার ভাবে। ভাবি আর একটা ভাষার কথা, আমার মা’য়েরটা ছাড়া, যে ভাষায় দু-দুটি দেশের জাতীয় সংগীত লেখা হয়। পৃথিবীতে ভাষা, যা ভাবপ্রকাশের আধার, তাকে নিয়ে যত আলোচনা হয়েছে আর হবে, তার সবচেয়ে বেশী মা’য়ের ভাষার পৃথিবীটাকে চিনতে....

সোফোক্লেস থেকে ব্রেশট ও আরো কিছু
দেবশঙ্কর হালদার

শুধু একুশ শতকের একজন ব’লেই না, জন্মমুহূর্ত থেকেই কি আমরা কোনো না কোনো ভাবে বিজ্ঞানের কাছে ঋণী নই? আজকের দিনে বেশিরভাগ শিশুই জন্মায় সিজারিয়ান পদ্ধতিতে- তাও বিজ্ঞানের এক অসামান্য অবদান। যদিও, ব্যক্তিগতভাবে আমার বেলায় তা হয়নি-...

ঔপনিবেশিক মানসিকতা থেকে বেরিয়ে আসতেই হবে
গৌতম বসু

উদ্ভাবনী ক্ষমতার প্রকাশ এবং বৈজ্ঞানিক আবিষ্কারের ক্ষেত্রে মতামত দেওয়া নেওয়ার প্রধান মাধ্যম কোন ভাষা হবে তার ওপর ভিত্তি করে পৃথিবীতে প্রতিনিয়ত এক বিশেষ ভারসাম্যহীনতা এবং কৌলীন্যের ব্যবধান তৈরী হয়। এই মুহুর্তে এই অসাম্য এবং আভিজাত্যের মূল ভিত্তি হচ্ছে ইংরেজি ভাষার অবিসংবাদী আধিপত্য।...

যে মানবীর মৃত্যু নেই
কৃষ্ণস্বামী বিজয়রাঘবন

অসুখ করলে আমরা ডাক্তার দেখাই। ডাক্তারবাবু অনেক পরীক্ষানিরীক্ষা করে কী অসুখ হয়েছে তা নির্ধারণ ক’রে প্রয়োজনীয় ওষুধ দেন। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে অসুখ সেরেও যায়। কিন্তু ডাক্তারবাবু কী করে জানলেন কী রোগে কী ওষুধ দিতে হবে? আপাতদৃষ্টিতে উত্তরটা খুবই সোজা।...

সাহা আয়নন সমীকরণ ও নক্ষত্রের হাইড্রোজেন
গৌতম গঙ্গোপাধ্যায়

আমরা আজ জানি যে সূর্য মূলত হাইড্রোজেন আর হিলিয়াম দিয়ে তৈরি। অন্য মৌলের পরমাণু সংখ্যা মোট পরমাণুর ০.৩ শতাংশেরও কম। যেমন সূর্যে ক্যালসিয়ামের সাথে হাইড্রোজেন পরমাণুর সংখ্যা প্রায় পাঁচ লক্ষ গুণ বেশী। অথচ সৌরবর্ণালীতে ক্যালসিয়ামের চিহ্ন হাইড্রোজেনের থেকে অনেক শক্তিশালী। ক্লাসে পড়ানোর সময় আমরা এখন দেখাই যে মেঘনাদ সাহার তাপ আয়নন...

অন্ধকারের উৎস হতে…
অর্পণ পাল

দৃশ্যমান জগতের সবকিছুই যে শেষ কথা নয়, আসলে আমাদের চারপাশের এই বস্তুসমূহ যে একটা হিমশৈলের চূড়া মাত্র— এটাই হল মূল কথা। আমরা চোখে দেখছি না অথচ রয়েছে, এমন অনেক কিছুরই কথা বলতে চলেছি এখন। মহাবিশ্বের সর্বত্রই, বিজ্ঞানীদের মতে আসলে যেটা ছড়িয়ে রয়েছে...

মহাকাশের আলো
অনির্বাণ কুণ্ডু

২০১৫ সালকে আন্তর্জাতিক আলোর বছর হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছিল। তার প্রধান কারণ বিখ্যাত মিশরীয় বিজ্ঞানী ইবন আল-হায়থামের (যিনি মধ্যযুগীয় ইউরোপে আলহাজেন নামেও পরিচিত) কালজয়ী গ্রন্থ কিতাব-অল-মানাজির বা বুক অফ অপটিক্সের হাজার বছর পূর্তি।...

আমি কেন বিজ্ঞান পড়ছি
সোহম চৌধুরী

বিজ্ঞান বিষয়টি যে ঠিক কী, তার সহস্রভাগের একভাগ হৃদয়ঙ্গম করতে লাগল আমার ১৭টি বছর। দাদুর হাত ধরেই বিষয়টির প্রতি আগ্রহ জন্মাতে থাকে বাল্য বয়স থেকে। প্রথম প্রথম বিজ্ঞান ও গণিত এই দুটি পৃথক বিষয়ের পাঠ্যবই পড়তে হত এবং ষষ্ঠ শ্রেণি পর্যন্ত বিজ্ঞান শিক্ষায়...

বিজ্ঞানের দোহাই
গৌতম গঙ্গোপাধ্যায়

ছোটবেলায় বাংলা রচনায় লিখতে হত আধুনিক যুগ হল বিজ্ঞানের যুগ, বিজ্ঞানই হল এই সময়ের চালিকা শক্তি, ইত্যাদি, ইত্যাদি। বয়স যত বাড়ছে কথাটার তাৎপর্য আরও ভালো করে বুঝতে পারছি। সত্যিই বিজ্ঞান ছাড়া এ যুগে এক পা এগোনোর উপায় নেই।...