সালোকসংশ্লেষ – বৈদ্যুতিক শক্তির উৎস!

তথ্যসূত্রঃ সি-এন-আর-এস প্যারিস মিশেল অ্যাঞ্জ ডেলিগেশন

সালোকসংশ্লেষে উৎপন্ন রাসায়ানিক শক্তিকে বৈদ্যুতিক শক্তিতে পরিণত করলেন ফ্রান্সের বিজ্ঞানীরা। সদ্য আবিষ্কৃত একটি বায়োফুয়েল কোষ এই প্রকল্পটিকে বাস্তবায়িত করেছে। উপস্থিত পদ্ধতি মেনে সৌরশক্তিকে পরিবেশসম্মত উপায়ে বৈদ্যুতিক শক্তিতে পরিণত করা যাবে।

আমরা জানি, সালোকসংশ্লেষ প্রক্রিয়ায় উদ্ভিদ সৌরশক্তিকে রাসায়নিক শক্তিতে পরিণত করে। দৃশ্যমান আলোর উপস্থিতিতে CO2 ও H2O গ্লুকোজে পরিণত হয় এবং জটিল রাসায়নিক বিক্রিয়ার ফলে তৈরী হয় O2। বিজ্ঞানীরা এই প্রক্রিয়াটিকেই বিদ্যুৎ শক্তি উৎপাদনের কাজে লাগিয়েছেন।

সি-এন-আর-এস (সেন্টার দে রেশের্শে পল পাসকাল) তরফ থেকে যে বায়োফুয়েল কোষটি প্রস্তুত করা হয়েছে তাতে দুটি ইলেক্ট্রোড বর্তমান। সালোকসংশ্লেষ প্রক্রিয়ায় উৎপাদিত গ্লুকোজ ও অক্সিজেনকে ব্যবহার ক’রে বিদ্যুৎ শক্তি উৎপন্ন করাই এদের উদ্দেশ্য।

অ্যানালিটিকাল কেমিস্ট্রি জার্নালে এই গবেষণার কথা প্রকাশিত হয়েছে। গবেষকরা জানিয়েছেন, প্রাথমিকভাবে কোষটিকে একটি উদ্ভিদের পাতার মধ্যে প্রবেশ করিয়ে দেওয়া হয় এবং গ্লুকোজ অক্সিজেনের প্রতি অতিসংবেদী ইলেক্ট্রোডগুলি কাজ করতে শুরু করে। একটি ডেস্ক ল্যাম্প ও তড়িৎবর্তনী এই সংগঠনের সাথে সংযুক্ত। পরীক্ষায় দেখা গেছে, ক্যাকটাসের পাতায় ঢোকানো বায়োফুয়েল কোষ প্রতি বর্গ সেন্টিমিটারে ৯ মিউওয়াট শক্তি উৎপন্ন করে।

এই প্রযুক্তি চিকিৎসার কাজে লাগানোরও ব্যবস্থা করা হচ্ছে। ডায়াবেটিক রোগীদের গ্লুকোজ লেভেল পরিমাপ করা যেতে পারে এই নতুন কোষের সাহায্যে, এমনটাই আশা করছেন গবেষকরা।

Add Comments