নিঃশ্বাস প্রশ্বাস কীভাবে আমাদের স্মৃতিশক্তি নিয়ন্ত্রণ করে

নিঃশ্বাস প্রশ্বাস কীভাবে আমাদের স্মৃতিশক্তি নিয়ন্ত্রণ করে

আমাদের শ্বাস-প্রশ্বাসের ধরণ, এবং মস্তিষ্কের উপর শ্বাস-প্রশ্বাসের প্রভাব, আমাদের স্মৃতি-গঠনের ক্ষমতাকে শক্তিশালী বা দুর্বল করতে পারে। নেচার কমিউনিকেশনে প্রকাশিত গবেষণায় বলছে, এই গবেষণালবদ্ধ ফলাফল মস্তিষ্কের ব্যাধি এবং মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যার চিকিত্সায় সাহায্য করতে পারে। মস্তিষ্কের শ্বাস নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র মেডুলা অবলংগাটার নাম অনুসারে, শরীরের স্বাভাবিক এবং স্বতঃস্ফূর্ত শ্বাস-প্রশ্বাসের আচরণকে মেডুলারি রেসপিরেটরি অ্যাক্টিভিটি বলা হয়। মেডুলা অবলংগাটার ভিতরে প্রি-বোটজিংগার কমপ্লেক্স (প্রিবোটসি) নামে পরিচিত নিউরনের একটি ছোট ক্লাস্টার এক্ষেত্রে বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ।
এই নতুন গবেষণায়, বিজ্ঞানীরা জেনেটিক্যালি পরিবর্তিত ইঁদুরগুলোর প্রিবোটসি -তে হস্তক্ষেপ করেছেন। তারা দেখতে পান সাময়িকভাবে ইঁদুরের শ্বাস-প্রশ্বাস বন্ধ করে দিলে, তখন ইঁদুরগুলো বস্তু সনাক্তকরণ এবং ফিয়ার কন্ডিশনিং বা ভয়ের সময়ে সাধারণত যে আচরণ করে সেই গুরুত্বপূর্ণ স্মৃতি তৈরি করতে বিশেষ সক্ষম হয় না। শ্বাস-প্রশ্বাসের বিরতিও মস্তিষ্কের হিপোক্যাম্পাসের কার্যকলাপকে প্রভাবিত করে বলে মনে হয় । এই হিপোক্যাম্পাসে দীর্ঘ কালীন ও স্বল্পমেয়াদী স্মৃতিশক্তি সঞ্চয় থাকে । পরীক্ষায় আরও দেখা যায় জোর করে অনিয়মিত শ্বাস-প্রশ্বাস ইঁদুরের স্মৃতিকে উন্নত করে, কিন্তু শ্বাস-প্রশ্বাসের গতি কমলে ইঁদুরের স্মৃতি নষ্ট হয়।
একই দলের পূর্ববর্তী গবেষণা ইতিমধ্যেই প্রমাণ করেছে যে মেমরি টাস্কের শুরুতে বা মাঝামাঝি সময়ে নিঃশ্বাস প্রশ্বাসের ধরন পালটে শ্বাস নির্গমন থেকে শ্বাস গ্রহণে পরিবর্তিত করলে তা মানুষের তথ্য স্মরণ করার গতি ধীর করে তোলে এবং তাতে ভুলভ্রান্তি হওয়ার সম্ভাবনা বাড়ে। এই নিঃশ্বাস প্রশ্বাসের ধরন এক্সপিরেটরি-টু-ইনস্পিরেটরি (EI) ট্রানজিশন নামে পরিচিত। এরপর গবেষণায় টেম্পোরোপ্যারিটাল জংশন বা TPJ নিষ্ক্রিয়করণের সাথে দুর্বল স্মৃতিশক্তির কর্মক্ষমতা লিঙ্ক করতে মস্তিষ্কের স্ক্যান করা হয়েছিল। TPJ অনেকগুলি বিভিন্ন কাজ পরিচালনা করে, শরীরের ভিতরে এবং বাইরে থেকে তথ্য প্রক্রিয়াকরণ করে এবং উপযুক্ত প্রতিক্রিয়া খুঁজে বের করে।
গবেষকরা পরামর্শ দেন যে কিছু শ্বাস-প্রশ্বাসের ধরন, যেমন EI ট্রানজিশন TPJ যে প্রক্রিয়াকরণ করে তা পুনরায় সেট করে, এবং TPJ স্মৃতিশক্তির কর্মক্ষমতার ওঠানামার সাথে জড়িত বলে মনে করা হচ্ছে। এই নিয়ে মানুষের মধ্যে গবেষণা করা দরকার। আমরা ইতিমধ্যেই শ্বাসপ্রশ্বাস এবং মস্তিষ্কের মধ্যে বিভিন্ন সংযোগ সম্পর্কে সচেতন – যেমন শ্বাস-প্রশ্বাসের ব্যায়াম আমাদের শান্ত করতে সাহায্য করে, গবেষকরা জানিয়েছেন ইচ্ছাকৃতভাবে আমাদের শ্বাস-প্রশ্বাসের ধরণগুলিকে সমন্বয় করতে পারলে অন্যান্য চিকিৎসার ক্ষেত্রে যেমন অবসাদ, স্নায়ুতন্ত্রের রোগের ক্ষেত্রে সাহায্য হতে পারে।