শল্যচিকিৎসকরা ত্রিমাত্রিক নাকের মুদ্রণ থেকে নাক প্রতিস্থাপন করলেন

শল্যচিকিৎসকরা ত্রিমাত্রিক নাকের মুদ্রণ থেকে নাক প্রতিস্থাপন করলেন

ফ্রান্সের একজন মহিলা ক্যান্সারে মুখের একটা অংশ হারিয়েছিলেন, তার নাক প্রতিস্থাপন করা গেছে। এটা একটা অত্যন্ত বিরল ঘটনা, ত্রিমাত্রিক মুদ্রণ থেকে কাস্টম-নির্মিত নাকটি প্রায় সম্পূর্ণ ল্যাবে তৈরি করা হয়েছিল। তবে নাকের রক্তনালীতে প্রয়োজনীয় রক্ত সরবরাহ দিতে শল্যচিকিৎসকরা এটাকে শরীরের এমন অংশে যুক্ত করেন যেখানে রক্ত সংবহন যথেষ্ট বেশি হারে হয় । তাই তারা এই ত্রিমাত্রিক নাক বাহুর সাথে যুক্ত করেন, বাহুতে দুই মাস কৃত্রিম নাকটা বসিয়ে সেখানে রক্ত সংবহন তন্ত্রের বিকাশের পর, ছয় ঘন্টার মাইক্রোসার্জারি করে কৃত্রিম নাকটা মহিলার মুখে যথাস্থানে বসানো হয়েছিল, এখানে রোগীর শরীরের সাথে তার নতুন রক্তনালীগুলিকে সাবধানে সংযুক্ত করা হয়েছিল । ২০২২ সালের নভেম্বরে, দশ দিন হাসপাতালে এবং তিন সপ্তাহ অ্যান্টিবায়োটিক খাওয়ার পরে, ফ্রান্সের টুলুস ইউনিভার্সিটি ক্যান্সার ইনস্টিটিউটের শল্যচিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন যে তাদের রোগী বেশ ভালো আছেন।
২০২১ সালে, শল্যচিকিৎসক অ্যাগনেস ডুপ্রেট-বোরিস ডুপ্রেট-বোরিস, তার সহকর্মী, বেঞ্জামিন ভাইরেলের সাথে, হাইড্রোক্সাপাটাইট, একটি প্রাকৃতিক খনিজ যা দাঁত এবং হাড় গঠনে সহায়তা করে তা ব্যবহার করে একটি প্রতিরূপ নাক প্রিন্ট করতে সক্ষম হয়েছিলেন। তারপরে রোগীর শরীর থেকে ত্বক এবং তরুণাস্থি নেওয়া হয়েছিল । অবশেষে, দুই মাসের মধ্যে রোগীর বাহু থেকে ক্ষুদ্র রক্তনালীগুলো স্বাভাবিকভাবে ইমপ্লান্টের মধ্যে উপনিবেশ করতে পেরেছিল। নয় বছর এবং বেশ কয়েকটি ব্যর্থ নাক প্রতিস্থাপনের চেষ্টার পর, রোগী অবশেষে তার নাক ফিরে পেয়েছেন। এবং এখন তিনি আগের চেয়ে ভাল গন্ধ পাচ্ছেন বলে জানা গেছে। ফ্রান্সের শল্যচিকিৎসকরা ভবিষ্যতে অন্যান্য শরীরের ইমপ্লান্টের ইমপ্লান্টেশন উন্নত করতে এই বৈপ্লবিক কৌশল ব্যবহার করার আশা করছেন।