সমুদ্র তলের রহস্য খুঁজে দেখবে ‘মৎস্য৬০০০’

সমুদ্র তলের রহস্য খুঁজে দেখবে ‘মৎস্য৬০০০’

দেশের প্রথম মহাসাগর পাইলট প্রকল্প ঘোষণা করেছে মিনিস্ট্রি অফ আর্থ সায়েন্স। চন্দ্রযানের পরে সমুদ্রযান নামবে ভারত মহাসাগরের ৬০০০ মিটার নিচে। মোট ৪০৭৭ কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত সমুদ্রযান ‘মৎস্য ৬০০০’ ২০২২ সালের মধ্যেই নেমে যাবে ভারত মহাসাগরে। দ্বায়িতে থাকবে ন্যাশানাল ইন্সটিটিউট অফ ওশান টেকনোলজি। এই অভিযানে তিন ভারতীয়ও নামবেন সমুদ্রের অতল গভীরে। ন্যাশানাল ইন্সটিটিউট অফ ওশান টেকনোলজি র জন্যে সেপ্টেম্বরের শুরুতেই বাংলার টিটাগড় ওয়াগন্স লিমিটেড ‘সাগর অন্বেষিকা’ নামে একটি জাহাজ পরীক্ষামূলক ভাবে।
‘মৎস্য ৬০০০’ তুলে আনবে ভারত মহাসাগরের অমূল্যরতন। ভারত মহাসাগরের নীচে ৩৮০ মিলিয়ন টন পলিটেকনিক নডিউল মিলতে পারে বলে অনুমান। যার মধ্যে নিকেলের পরিমান ৪.৭ মিলিয়ন টন। কপার ৪.২৯ মিলিয়ন টন। ০.৫৫মিলিয়ন টন কোবল্ট, ৯২.৫৯ মিলিয়ন টন ম্যাঙ্গানিজ পাওয়া যেতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সমুদ্রের এই বিপুল ভাণ্ডার ব্যবহার করে দেশের ব্লু ইকোনমির ওপর জোর দিতে চাইছে সরকার।