৯৫ শতাংশ বিদ্যুৎ উৎপাদন সৌর আর হাওয়া থেকে!

৯৫ শতাংশ বিদ্যুৎ উৎপাদন সৌর আর হাওয়া থেকে!

আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে ভারতে বিদ্যুৎ উৎপাদনের ক্ষেত্রে যে ১২১ গিগাওয়াট বর্তমানে উৎপাদিত বিদ্যুতের সঙ্গে যুক্ত হবে তার পুরোটাই রিনিউএবল এর্নাজি বা নবায়নযোগ্য শক্তি থেকে! এই ভবিষ্যদ্বাণী ভারতের কোনও সরকারি মন্ত্রক থেকে নয়। করেছে ইন্টারন্যাশনাল এনার্জি এজেন্সি (আইইএ)। এজেন্সি আরও ভবিষ্যদ্বাণী করেছে শুধু ভারত নয়, সমগ্র বিশ্বেই বর্তমানে উৎপাদিত বিদ্যুতের পরিমাণ আগামী বছরে আরও ৯৫ শতাংশ বাড়বে এবং তার পুরোটাই তৈরি হবে নবায়নযোগ্য শক্তির দ্বারা, মানে সৌর শক্তি আর হাওয়া থেকে। ভারতের যেমন বর্তমানে উৎপাদিত বিদ্যুতের পরিমাণ ১৫৪.৯ গিগাওয়াট। আগামী পাঁচ বছরে সেটা ৮৬ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে।
আইইএ জানিয়েছে, ২০২০-তে কোভিড এবং লকডাউনের জন্য ভারতে নবায়নযোগ্য শক্তির আধারগুলোকে স্থাপন করা যায়নি। ৪৪ শতাংশ কমে গিয়েছে। যা ২০২১ এবং আগামী বছর, মানে ২০২২-এ করা হবে। আইইএ-র ডিরেক্টর ফাতি বিরল একটি বিবৃতির মাধ্যমে জানিয়েছেন, ভারত সরকার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল ২০৩০-এর মধ্যে নবায়নযোগ্য শক্তি থেকে ৫০০ গিগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করবে। সেই পথেই এগোচ্ছে তারা। এর মধ্যে ১৬ শতাংশ বিদ্যুৎ তৈরি হবে হাওয়া থেকে আর ১৭ শতাংশ বিদ্যুৎ উৎপাদন হবে সৌরশক্তি থেকে।
আইইএ আরও জানিয়েছে, শুধু ভারত নয়, চিনও এই বিষয়ে বিশ্বের অন্য দেশগুলোর নেতা হতে চাইছে! রেকর্ড সংখ্যক রিনিউএবল এনার্জির আধার তৈরি করে। আইইএ ডিরেক্টরের আশা, এর ফলে ২০৩০-এ পৃথিবীর বাতাসে কার্বন-ডাই-অক্সাইডের পরিমাণ অন্তত কিছুটা কমতে পারে।