আকাশপথে ট্যাক্সি পরিবহণ সেবা দক্ষিণ কোরিয়ায়

আকাশপথে ট্যাক্সি পরিবহণ সেবা দক্ষিণ কোরিয়ায়

এক বিমানবন্দর থেকে আর এক বিমানবন্দরে যেতে সময় লাগে। অথবা কাছাকাছি হলেও দুই শহরের মধ্যে গাড়িতে যাতায়াত করতে গেলে সময় লাগে। রাস্তায় জ্যাম। বিকল্প ব্যবস্থা হিসেবে দক্ষিণ কোরিয়ায় চালু হতে চলেছে আকাশপথে ট্যাক্সি পরিবহণ সেবা! সংক্ষেপে যাকে বলা হচ্ছে ইউএএম। দেশের পরিবহণ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে ৩০ থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরত্ব গাড়িতে লাগত প্রায় ঘন্টা খানেক। সেখানে উড়াল ট্যাক্সিতে ২০ মিনিটে আরোহী পৌঁছে যাবে গন্তব্যস্থলে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের দেওয়া খবর অনুযায়ী, সিওলে ইতিমধ্যে ইউএএমের প্রদর্শনীও হয়েছে। গিমপো বিমানবন্দরে জার্মানির ভেলোকপ্টার সংস্থার তৈরি দুই আসনের একটি উড়োযান পরীক্ষামূলকভাবে চালিয়েও দেখানো হয়েছে। ঊড়াল ট্যাক্সিটি হেলিকপ্টারের মত খাড়াভাবে উঠতে পারে। সেটা চালকের সহায়তায় হতে পারে, আবার চালক ছাড়া স্বয়ংক্রিয়ভাবেও চলতে পারে। তবে উড়াল এই ট্যাক্সিতে যাতায়াতের খরচ প্রচলিত ট্যাক্সি পরিষেবার চেয়ে শুরুতে অনেক বেশিই হবে। ইঞ্চিয়ন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে মধ্য সিওলে উড়াল ট্যাক্সিতে যেতে খরচ পড়বে ৯৩ ডলার। তবে ব্যবহার নিয়মিত হতে শুরু করলে ২০৩৫ নাগাদ খরচটা নেমে ১৭ ডলারে আসবে বলে পরিবহণ দফতর জানিয়েছে। এই উড়াল ট্যাক্সি সাধারণ মানুষ ব্যবহার করতে আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে।