ইডার তাণ্ডবে বিপর্যস্ত তৈল শোধনাগার

ইডার তাণ্ডবে বিপর্যস্ত তৈল শোধনাগার

ঘূর্ণিঝড় ইডা-র আমেরিকা অভিযানের আগে দেশের চারপাশে থাকা সমস্ত তৈল শোধনাগারগুলোর কাজ সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তাতেও কোনও কাজ হয় নি। ইডা তার কাজ করে দিয়ে গেছে। সে চলে যাওয়ার পর দেখা গিয়েছে গালফ অফ মেক্সিকোয় আটলান্টিকের ওপর মাইলের পর মাইল জুড়ে তেলের আস্তরণ! রামধনুর মতো ছবি ফুটে উঠেছে সেই এলাকায়। মার্কিন সরকার এবং সংবাদসংস্থা এপি প্রচুর ছবি তুলেছে, তৈল শোধনাগারগুলিকে পাঠিয়েওছে। লুজিয়ানার বন্দর থেকে শুরু করে গালফের তৈল শোধনাগার কোম্পানিগুলো, মিসিসিপি নদীর উপকূলে থাকা আরও একটি তৈল শোধনাগার– সর্বত্র দেখা গিয়েছে, জলের ওপর তেলের আস্তরণ! সেই ছবি দেখার পর সংবাদসংস্থা যোগাযোগ করেছিল তৈল শোধনাগারগুলির সঙ্গে। কোম্পানিগুলোর কেউ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে, কেউ বা এড়িয়ে গিয়েছে। অ্যালায়েন্স রিফাইনারির মতো কোনও কোনও কোম্পানি আবার স্বীকারও করেছে সমুদ্রের জলের ওপর তেলের আস্তরণের কথা। এককথায়, ঘূর্ণিঝড় ইডা-র তাণ্ডবে তৈল শোধনাগারগুলোতে রাখা তেল ‘লিক’ করেছে। প্রশ্ন উঠেছে, আগে থেকে জরুরী নির্দেশ দেওয়া সত্বেও তৈল শোধনাগারগুলো কি পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেয়নি? নড়েচড়ে বসেছে মার্কিন সরকারও। মনে হয় বেশ কিছুদিন এখন এই বিতর্ক চলবে।