কামাল করল চন্দ্রযান

কামাল করল চন্দ্রযান

চাঁদেই মিলল জলের খোঁজ। আর এই খোঁজ দিল চন্দ্রযান ২। চাঁদের মাটিতে অবতরণ করতে না পারলেও, কাজ কিন্তু করেই চলেছে মহাকাশযানটি।‌ ইসরো জানাচ্ছে, মহাকাশযানের অরবিটার এখনও চাঁদকে ঘিরে নিজের পথে চক্কর কেটে চলেছে। আর সেই পথেই অভিযান চালিয়ে অভিযানের কিছুটা হলেও সুফল পাচ্ছেন ইসরোর বিজ্ঞানীরা।
জানা গিয়েছে, চাঁদের ২৯ থেকে ৬২ ডিগ্রি উত্তর অক্ষাংশে ওই নমুনার সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। ইসরোর বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, চন্দ্রযান ২ এর পর্যবেক্ষণকালে অরবিটারের মধ্যে থাকা ইনফ্রারেড স্পেকট্রোমিটার চাঁদের ইলেকট্রোম্যাগনেটিক স্পেকট্রাম বিশ্লেষণ করে। চন্দ্রপৃষ্ঠে কত পরিমাণে ধাতু রয়েছে, তা পরীক্ষা করতে গিয়েই হাইড্রক্লিল ও জলের অণুর সন্ধান পাওয়া গিয়েছে।
২০১৯ সালে চাঁদে অবতরণ করার সময়ে গতির সমস্যায় ল্যান্ডার বিক্রম ভেঙে পড়ে। তবে মহাকাশযানের অরবিটার ঠিক থাকায় তা সক্রিয়ভাবে কাজ করে। এর আগেও ছবি তুলে ইসরোকে পাঠিয়েছে সে । চন্দ্রযান ২-এর অবতরণ থেকে শিক্ষা নিয়ে ফের চাঁদের বুকে চন্দ্রযান ৩ পাঠাবার প্রস্তুতি নিচ্ছে ভারতের মহাকাশবিজ্ঞান কেন্দ্রটি। জানা গিয়েছে. চন্দ্রযান ৩-এ ল্যান্ডার, রোভার দুটিই থাকবে। চন্দ্রপৃষ্ঠে যে জলের অণুগুলি পাওয়া গিয়েছে, তা দেখে বিজ্ঞানীা জানিয়েছেন, সূর্য রশ্মি বাতাসের সঙ্গে মিশে চাঁদের আবহাওয়ায় বিক্রিয়ার মাধ্যমে এই জলের অণুগুলির উৎপত্তি হয়েছে। চন্দ্রযান-২ অরবিটারের এই তথ্য যে চাঁদ সম্বন্ধে অনেক অজানা পথ খুলে দিতে সক্ষম হবে, তা বলাই বাহুল্য।