কার্বন ডাই-অক্সাইড থেকে পাথর!

কার্বন ডাই-অক্সাইড থেকে পাথর!

জলবায়ুর অস্বাভাবিক পরিবর্তন এই মুহূর্তে পৃথিবীর প্রধান একটি বিপদ৷ অস্বীকার করা যাবে না, এই অতি দ্রুত পরিবর্তন প্রক্রিয়ায় প্রযুক্তির ভূমিকাই ব্যাপক। এবার সেই প্রযুক্তিই সমাধানের সূত্র খানিক হলেও দিল।
গত ৮ সেপ্টেম্বরে সুইজারল্যান্ডের ক্লাইমওয়ার্কস ও আইসল্যাণ্ডের কার্বফিক্স যৌথভাবে আইসল্যান্ডের ‘রেকজাভিক’ প্রদেশে ‘ওরকা’ নামের এক প্রকল্প উদ্বোধন করেছে। বাংলায় ‘ওরকা’ মানে শক্তি। বায়ু থেকে সরাসরি কার্বন ডাই -অক্সাইড শোষণ করে তাকে মাটির ব্যসল্ট স্তরের নিচে চাপা দিয়ে শিলায় রূপান্তরিত করবে এই প্রযুক্তি। গোটা প্রযুক্তিটি চারটিe ইউনিটে বিভক্ত। প্রতি ইউনিটে রয়েছে দুটি করে ধাতব বাক্স। পণ্যবাহী জাহাজের কন্টেনার যেমন হয়, অনেকটা সেরকম। ওরকা বছরে প্রায় ৪০০০ টন কার্বন ডাই -অক্সাইড বায়ু থেকে শোষণ করতে পারবে বলে নির্মাতারা জানিয়েছেন। যা কিনা ৮৭০টি গাড়ি থেকে বেরোনো কার্বন ডাই-অক্সাইডের সমান।
এই প্রকল্প উদ্বোধন করেন আইসল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী কার্টিন জ্যকবসডটির। সঙ্গে সে দেশের রাষ্ট্রপতি ওলাফুর গ্রিমসন। জলবায়ু বিজ্ঞানী হিসেবে উদ্বোধনে উপস্থিত ছিলেন কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানী জুলিও ফ্রাইডম্যান ও বার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের থমাস স্টকার।
এখন দেখার এটাই যে মানুষের হাতে গড়া প্রযুক্তি মানুষেরই হাতে গড়া প্রাকৃতিক বিপদের হার(rate)কে টেক্কা দিতে পারে কিনা!