গঙ্গার দূষণ বিপজ্জনক জায়গায় যাচ্ছে

গঙ্গার দূষণ বিপজ্জনক জায়গায় যাচ্ছে

গঙ্গা আগামীদিনে বন্যার সৃষ্টি করবে, সেই ভবিষ্যদ্বাণী ইতিমধ্যেই বিজ্ঞানীরা করে দিয়েছেন। এবার সাম্প্রতিক এক গবেষণা গঙ্গার জলের গুনগত মান নির্ণয় করে জানাল, জলের দূষণ ক্রমশ বিপজ্জনক অবস্থায় পৌঁছে যাচ্ছে! কলকাতার আইআইএসইআর রিসার্চ গ্রুপের মাইক্রোবায়াল এবং ট্যাক্সোনমি বিভাগের বিজ্ঞানী পূণ্যশ্লোক ভাদুড়ীর নেতৃত্বে একদল বিজ্ঞানী গত দু’বছর ধরে গঙ্গার নিম্নাংশে ৫০ কিলোমিটার অঞ্চল জুড়ে ৫৯টি জায়গায় জলের গুণগত মান পরীক্ষা করে দেখছেন, এত পরিমাণে দূষিত পদার্থ গঙ্গায় মানুষ ফেলেছে এবং বর্তমানেও ফেলছে যে, ওয়াটার কোয়ালিটি ইনডেক্স ক্রমশ ১৪৫২-র নিচে চলে যাচ্ছে (খুব খারাপ)। বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, গঙ্গার এই দূষণের ফলে প্রতিমুহুর্তে ক্ষতি হয়ে যাছে সুন্দরবনের ম্যাংগ্রোভ জঙ্গলের। বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে গঙ্গায় ঘুরে বেড়ানো ডলফিন! বিজ্ঞানীরা গঙ্গায় দূষিত পদার্থেরও পরিমাপ করেছেন তারা। জানিয়েছেন দূষণের প্রতিফলনে নদীতে সৃষ্টি হচ্ছে মূলত নাইট্রোজেনের। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে একটি বিবৃতি দিয়ে বলা হয়েছে, ‘গঙ্গার নিম্নাংশে জলের গুণগত মান যে পরিমাণ খারাপ হচ্ছে সেটা আগামীদিনে গঙ্গার পরিবেশগত স্বাস্থ্য বিরাটভাবে খারাপ করে দেবে। পৃথিবীর উষ্ণায়ন এবং মানুষের সৃষ্টি করা দূষণে গঙ্গা অদূর ভবিষ্যতে একাধিকবার বড় রকমের বন্যা উপহার দেবে, গঙ্গার পাশে থাকা বহু শহরও জলের তলায় তলিয়ে যেতে পারে বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। কিন্তু জলের যে দূষণের কথা বিজ্ঞানীদের গবেষণা জানাচ্ছে তাতে আগামীদিনে মানুষকে গঙ্গাজলে পুজো করার আগে হয়ত ভাবতে হবে।