গলা বরফ থেকে জলবায়ু বান্ধব কৃষি!

গলা বরফ থেকে জলবায়ু বান্ধব কৃষি!

সুমেরু, কুমেরু এবং গ্রীনল্যান্ড জুড়ে অত্যন্ত দ্রুত গতিতে গলে যাচ্ছে হিমবাহ। বায়ুদূষণ এবং পৃথিবীর ক্রমবর্ধমান তাপমাত্রায় এখন বিজ্ঞানীদের অধিকাংশের নজর পৃথিবীর উত্তরতম প্রান্তের দেশগুলোর দিকে। হিমবাহ গলে যাওয় নিয়েই তাদের উদ্বিগ্নতা।
গ্রীনল্যান্ডের রাজধানী নুউকে এক বিজ্ঞানী, মিনিক রোজিং এই আশঙ্কার দিনে বায়ুদূষণ কমানোর এক দিশা দেখিয়ে দিলেন। এবং তার দিশা দেখানোর যে কাজ তার অন্যতম উপাদান হিমবাহ থেকে গলে যাওয়া বরফের কণা! রোজিং এবং তার কোপেনহেগেন বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য বিজ্ঞানীদের দল গলে যাওয়া বরফের যে আস্তরণ বা বড় বড় শিলাখণ্ডকে গুঁড়ো করে ন্যানো কণায় রূপান্তরিত করে তৈরি করছেন এমন এক পুষ্টিকর কাদা যা কাজে লাগছে ওখানকার কৃষিকাজে! বরফের এই বড় বড় চাঁইকে রোজিং বলছেন গ্লেসিয়াল রক ফ্লাওয়ার। এই বরফের কাদা কৃষিজমিতে প্রয়োগ করার পর দেখা যাচ্ছে হাওয়ায় থাকা কার্বন-ডাই-অক্সাইড শুষে নিচ্ছে ওই রক ফ্লাওয়ার! ডেনমার্কে বার্লি (যব) চাষের ক্ষেত্রে প্রতি এক একর জমিতে ২৫ টন গ্লেসিয়াল রক ফ্লাওয়ার দেওয়া হয়েছে। বিজ্ঞানীদের পর্যবেক্ষণ, তাতে ৩০ শতাংশ ফলন বেড়ে গিয়েছে! শুধু গ্রীনল্যান্ড বা ডেনমার্ক নয়, গ্লেসিয়াল রক ফ্লাওয়ার ব্যবহার করে ঘানায় একাধিক রুক্ষ জমিতেও শষ্যের ফলন বেড়েছে এবং পরিবেশকে দূষণমুক্ত করে। বিজ্ঞানীরা এই তিন দেশে সাফল্যের পর এখন অস্ট্রেলিয়া, ফ্রান্স, ইতালি এওং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেও এই রক ফ্লাওয়ার চাষের কাজে প্রয়োগ করার পরিকল্পনা করছেন। মিনিক রোজিং-এর দাবি, বরফের কাদার মধ্যে যে বরফের পাথর রয়েছে তাতেই বাতাসের কার্বন-ডাই-অক্সাইডকে শুষে নিচ্ছে।