ঘাতক রোবট নিয়ে শঙ্কা

ঘাতক রোবট নিয়ে শঙ্কা

বিশ্বজুড়ে ‘ঘাতক রোবট’ নিয়ে উৎকণ্ঠা বাড়ছে। রোবট বা স্বয়ংক্রিয় যন্ত্র স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র হিসেবে ব্যবহৃত হতে পারে। তাই রোবট তৈরির ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় নীতিনৈতিকতা নির্ধারণ করা নিয়ে আলোচনা চলছে। এ আলোচনা জাতিসংঘ পর্যন্ত গড়িয়েছে। আন্তর্জাতিক একটি চুক্তির কথাবার্তাও হচ্ছে এ নিয়ে। ঘাতক রোবট নিয়ে উৎকণ্ঠা বাড়লেও রাশিয়া, যুক্তরাষ্ট্রসহ এ ধরনের রোবট নির্মাতা দেশগুলো এমন চুক্তি নিয়ে আলোচনার বিরোধিতা করছে। তবে আলোচনা না এগোনোয় বিভিন্ন দেশের সরকারি কর্মকর্তা ও বেসরকারি সংগঠনের পক্ষ থেকে হতাশার কথা বলা হচ্ছে। নিউইয়র্ক টাইমস-এর এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়। বর্তমানে ড্রোনের মতো আধা স্বয়ংক্রিয় যন্ত্রগুলো নানা কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। যুদ্ধক্ষেত্রে এগুলোর ব্যবহার ইতিমধ্যে দুশ্চিন্তা বাড়িয়েছে। তবে ড্রোনের মতো যন্ত্রের নিয়ন্ত্রণ থাকে মানুষের হাতে। সে তুলনায় পুরোপুরি স্বয়ংক্রিয় অস্ত্রে (ঘাতক রোবট) মানুষের হাতে কোনো ‘কিল সুইচ’ বা নিয়ন্ত্রণের সুযোগ থাকে না। এর পরিবর্তে যন্ত্রটি নিজেই তার সেন্সর, সফটওয়্যার ও কারিগরি প্রক্রিয়া ব্যবহার করে সিদ্ধান্ত নিতে পারে। এ ক্ষেত্রে মানুষের জীবন ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে।