ঝিনুক বন্ধু ব্যাক্টেরিয়া

ঝিনুক বন্ধু ব্যাক্টেরিয়া

বন্ধু ব্যাক্টেরিয়া! তাও আবার ঝিনুকের! আছে আছে। ওই ব্যাক্টেরিয়া ঝিনুকের শারীরবৃত্তীয় কাজকর্মের অনেক ক্ষতি করলেও, প্রখর রোদের হাত থেকে ওই প্রাণীটিকে রক্ষা করে। সম্প্রতি দক্ষিণ আফ্রিকার রোডেস বিশ্ববিদ্যালয়ের সমুদ্রজীববিজ্ঞানী কেটি নিকাস্ত্রো লক্ষ্য করেন, ক্যানোব্যাকটেরিয়া নামের একধরণের জীবানু আক্রান্ত ঝিনুকের মূল খোলসের কালো অংশটি সরে গিয়ে সেখানে সাদা সাদা ছোপ ফুটে উঠেছে। ওই ব্যাক্টেরিয়াটি ঝিনুকের বৃদ্ধির হার কমিয়ে দিচ্ছে। প্রজনন ক্ষমতা কমিয়ে দিচ্ছে, আবার প্রচন্ড গরমের সময়ে ঝিনুক গুলিকে রক্ষা করছে। খোলশের কালো অংশগুলি সূর্যের তাপ শোষণ করে উত্তপ্ত করে তোলে ঝিনুক গুলিকে। সাদা ছোপের অংশগুলি থেকে তাপের বিকিরণ হয়। অর্থাৎ খোরশেদ ওই অংশে সূর্যের আলো পড়লে সেই আলো প্রতিফলিত হয়। ব্যাক্টেরিয়াটিকে ঝিনুক যেমন পুষ্টি যোগায়, প্রতিদানে ব্যাক্টেরিয়াটি ঝিনুকের দেহের তাপ কমায়। এও এক ধরনের মিথোজীবিতা।