টীকার চেয়ে বড় অস্ত্র মাতৃদুগ্ধ

টীকার চেয়ে বড় অস্ত্র মাতৃদুগ্ধ

টীকার চেয়েও বড় অস্ত্র হতে পারে মাতৃদুগ্ধ! শিশুর কাছে যে মাতৃদুগ্ধের কোনও বিকল্প হয় না সেটা বোঝা গেল করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের মধ্যেও! কোভিডে আক্রান্ত মা-ও পরিত্রাতা হয়ে উঠেছেন সদ্যোজাত শিশুর। মায়ের স্তন্যদুগ্ধই সদ্যজন্মানো শিশুকে সরবরাহ করছে করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করার হাতিয়ার বা অ্যান্টিবডি। যে কারণে জন্মানোর পর শিশুর আর প্রয়োজন হবে না টীকা নেওয়ার। আমেরিকার ৬টি বিশ্ববিদ্যালয় একটি হাসপাতালের যৌথ গবেষণা জানিয়েছে এই খবর। অন্যতম গবেষক আইড্যাহো বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মিশেল কে শেলি ম্যাকগুয়েরি বলেছেন, “আমরা দেখেছি কোভিডে আক্রান্ত হওয়ার দু’মাস পরও স্তন্যদুগ্ধে শিশুকে দেওয়ার জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণে অ্যান্টিবডি থাকছে। আর সেই অ্যান্টিবডিগুলো ডেল্টা, ওমিক্রন সহ করোনার প্রায় সমস্ত ভ্যারিয়ান্টকে সদ্যোজাতের শরীরে ঢোকা থেকে রুখে দিতে পারছে। কোনও কোনও মায়ের ক্ষেত্রে এ-ও দেখা গিয়েছে সংক্রমণের এক সপ্তাহের মধ্যেই শিশুকে দেওয়ার জন্য ওই অ্যান্টিবডিগুলো তৈরি হয়ে যাচ্ছে স্তন্যদুগ্ধে। গবেষণাটি প্রকাশিত হয়েছে গবেষণা পত্রিকা ফ্রন্টিয়ার্স ইন ইমিউনোলজি-তে।