ডায়ানোসর রহস্য-১১

ডায়ানোসর রহস্য-১১

ধারাল নখেই গাছপালা ছিড়ে খেত তৃণভোজী ডায়নোসর

থেরিজিনোসর-দের চেনেন? ঠিক ধরেছেন। এক ধরনের ডাইনোসর, যারা ছিল মূলত তৃণভোজী। তবে তার থেকেও চমকপ্রদ বৈশিষ্ট্য হল, এদের হাতের আঙুল। আঙুল মানে নখ। বিরাট, তীক্ষ্ণ–একেবারে লম্বা ছুরির ফলার মতো ধারালো। প্রত্যেক হাতে সংখ্যায় তিনটি। এই ধরনের ‘বাইপেডাল’ ডাইনোসররা আজ থেকে প্রায় ১৪৫ মিলিয়ন বছর আগে পৃথিবীর বুকে দাপিয়ে বেড়াত। আরও স্পষ্ট করে বললে, ক্রেটাশাস যুগে। এরা ছিল ‘প্যারালিথেরাইজিনোসরাস জাপোনিকাস’ গোত্রের। যাদের ভাল নাম–‘থেরিজিনোসর’। এই নতুন ধরনের ডাইনোসরদেরই জীবাশ্ম মিলেছে সম্প্রতি জাপানের হোক্কাইডো দ্বীপে। এশিয়ার মাটিতে এরকম ডাইনোসরের ফসিল এই প্রথম মিলল। আমেরিকা ও জাপানের বিশেষজ্ঞরা মিলে যৌথ গবেষণা করছিলেন। তাঁরাই এমনটা জানিয়েছেন। বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, এই ডায়নোসরদের তরোয়ালের মতো হাতের আঙুল তথা নখই এদের অন্য প্রজাতিদের থেকে আলাদা করে তুলেছে। তবে এই ‘অস্ত্র’টি দিয়ে এরা শিকার ধরত না। তৃণভোজী হওয়ায় এই নখের মাধ্যমে গাছপালা, গুল্ম ধরে কাছে টেনে এনে খেত। কিন্তু কীভাবে পৃথিবী থেকে বিলুপ্তি ঘটল এদের? ডালাসের রয় এম হাফিংটন ডিপার্টমেন্ট অফ আর্থ সায়েন্সেসের গবেষক-অধ্যাপক অ্যান্থনি ফিওরিলোর দাবি, স্বাভাবিক নিয়মেই এরা অবলুপ্ত হয়েছে। তারপর মাটিতে পড়ে থাকা এদের মৃতদেহগুলি সমুদ্রের স্রোত ভাসিয়ে নিয়ে চলে গিয়েছিল। জানা গিয়েছে, যে জীবাশ্ম পাওয়া গিয়েছে, তা প্রথম আবিষ্কৃত হয়েছিল ২০০৮ সালে। কিন্তু সেই সময় এদের সম্পর্কে যথাযথ তথ্য না থাকায় বিজ্ঞানীরা কোনও সিদ্ধান্তে উপনীত হতে পারেননি।