ডিসেম্বর জুড়ে আকাশে মানুষ দেখবে ধুমকেতু!

ডিসেম্বর জুড়ে আকাশে মানুষ দেখবে ধুমকেতু!

খালি চোখেই মানুষ দেখবে ধুমকেতু! ডিসেম্বরের গোড়া থেকে মাসের প্রায় শেষ দিক পর্যন্ত। বাড়ির ছাদ থেকেই দেখা যাবে। ধুমকেতুর বৈজ্ঞানিক নাম সি-২০২১-এ-১। কিন্তু এবছরের জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে মাউন্ট লেমন পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের জ্যোর্তিবিজ্ঞানী জি জে লিওনার্ড এই ধুমকেতু আবিষ্কার করেছিলেন বলে আমজনতার জন্য এই ধুমকেতুর নাম রাখা হয়েছে লিওনার্ড। ধুমকেতুর মাথার চারদিকের বলয় থেকে বেরিয়ে আসছে সবুজ রঙের আলো। তার সঙ্গে দীর্ঘ এক লেজ! ডিসেম্বরে পৃথিবী আর শুক্রের খুব কাছাকাছি এসে পড়বে এই ধুমকেতু। সেই পথ ধরে সুর্যকে প্রদক্ষিণ করবে সে। তারপর জানুয়ারিতে তার পৃথিবীর কাছ থেকে বিদায় নেওয়ার পালা। সে আবার ফিরবে, তবে ১২ বছর পর। কিন্তু ধুমকেতুর লেজ কীভাবে তৈরি হয়? জ্যোর্তিবিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন প্রদক্ষিণ করার সময় সুর্যের কাছাকাছি এলে ধুমকেতুর ভেতরে জমে থাকা বরফ সুর্যের তাপ ও টানে বেরিয়ে এসে তৈরি করে লেজ। সুর্যের সঙ্গে দূরত্ব কমার সঙ্গে সঙ্গে তার লেজও ক্রমশ লম্বা হতে থাকে। নাসা জানিয়েছে, ডিসেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে লিওনার্ড আকাশের উত্তর থেকে দক্ষিণে চলে যাবে।