দক্ষিণ-এশীয়দের বিপজ্জনক জিন!

দক্ষিণ-এশীয়দের বিপজ্জনক জিন!

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা একটি জিন খুঁজে পেয়েছেন যা কোভিডে আক্রান্ত রোগীদের শ্বাসযন্ত্র দ্রুত বন্ধ করে দিতে পারে। মানুষের শরীরে যে কোষগুলো শ্বাসনালী এবং শ্বাসযন্ত্রের আস্তরণের কাজ করে, কোভিডের মারণ ভাইরাসকে প্রতিরোধ করে তার সঙ্গে লড়াই করে, সেটা হারিয়ে যায় এই বিশেষ জিনের জন্য। জিনটির নাম এলজেডটিএফএল-১।
এর চেয়েও গুরুত্বপূর্ণ এবং উদ্বেগজনক তথ্য অক্সফোর্ডের বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন। তা হল এই বিশেষ জিন মূলত সেই মানুষদের শরীরে পাওয়া গিয়েছে যারা দক্ষিণ-এশীয়দের বংশধর! ৬০ শতাংশ সেই মানুষদের শরীরে পাওয়া গিয়েছে এই জিনের অস্তিত্ব যাদের পুর্বসূরীরা দক্ষিণ-এশীয়! ইউরোপীয় পুর্বপুরুষদের বংশধরদের মধ্যেও দেখা গিয়েছে এই জিনের অস্তিত্ব, তবে সেটা ১৫ শতাংশ। অক্সফোর্ডের গবেষকরা বলছেন এই কারণে, ভারতীয় উপমহাদেশে কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত বেশি মানুষ মারা গিয়েছেন, বেশি মানুষকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছে।
এই তথ্যের সত্যতা অবশ্য এখনও পর্যন্ত অন্য কোনও বিজ্ঞানীর দল যাচাই করেনি। কারণ, সংবাদমাধ্যমের সূত্রে পৃথিবীর মানুষ এখনও পর্যন্ত জানে, গতবছর থেকে এযাবৎ, কোভিডের ধাক্কা সবচেয়ে বেশি লেগেছিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র! এমনকী, রবিবারও সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, রাশিয়ায় এক দিনে এক হাজার মানুষ মারা গিয়েছেন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এবং রাশিয়ায় আক্রান্ত এবং মৃতদের মধ্যে দক্ষিণ এশীয়দের হার কত ছিল সেটাও অবশ্য অক্সফোর্ড জানায়নি!