প্রাগৈতিহাসিক যুগেও মানুষ ছিল!

প্রাগৈতিহাসিক যুগেও মানুষ ছিল!

প্রাগৈতিহাসিক যুগেও মানুষ ছিল! নিউ মেক্সিকোয় পাওয়া গিয়েছে সেই যুগের মানুষের পায়ের ছাপ! ৬০টি ছাপ, যেগুলোর বয়স ভূতত্ববিদরা জানিয়েছেন ২৩ থেকে ২১ হাজার ৫০০ বছর আগের! ভূতত্ববিদদের হিসেব অনুযায়ী, তুষার যুগ ছিল সময়টা। সেই উত্তর আমেরিকায়, এখন যা নিউ মেক্সিকো হয়েছে, মানুষের অস্তিত্ব ছিল। আমেরিকায় প্রথম কবে মানুষ পা রেখেছিল সেই নিয়ে বিজ্ঞানীদের মধ্যে বা ভূতত্ববিদদের মধ্যেও দ্বিধা রয়েছে। অনেক বিজ্ঞানীর ঐতিহাসিক অভিমত, বেরিং স্থল সেতু, যা এশিয়া আর উত্তর আমেরিকার মধ্যে যোগাযোগ স্থাপন করেছিল সেখান দিয়েই প্রথম মানুষ আমেরিকায় প্রবেশ করেছিল। সময়টা ১৩ হাজার বছর আগের। সেই সময় বিশাল এক বরফের আস্তরণ, লরেন্টাইড, উত্তর আমেরিকার অধিকাংশ ঢেকে রেখেছিল। বিজ্ঞানীদের পর্যবেক্ষণ, পরবর্তীকালে সেই বিশাল বরফের চাদর আর্কটিকের দিকে চলে যায়। আবার আর এক দল ভূতত্ববিদদের অভিমত, মেক্সিকোর গুহায় যে প্রাণীদের হাড়ের জীবাশ্ম পাওয়া গিয়েছিল বা পাথরের তৈরি যন্ত্র খুঁজে পাওয়া গিয়েছিল তার বয়স কিন্তু প্রায় ৩০ হাজার বছর! এই দলের ভূতত্ববিদদের তাই ধারণা, উত্তর আমেরিকায় মানুষের প্রবেশ ঘটেছিল ৩০ হাজার বছর আগে। কিন্তু দু’দলের কেউই নিশ্চিত হতে পারেননি, উত্তর আমেরিকায় মানুষ প্রথমবার কোন সময় পা রেখেছিল।
হোয়াইট স্যান্ডস ন্যাশনাল পার্কে ৬০টি পায়ের চিহ্ন খুঁজে পাওয়ার পর বিজ্ঞানীদের গবেষণার শেষ নেই! মেক্সিকো তো আছেই, ইংল্যান্ডের বোর্নমুথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ছুটে চলে গিয়েছেন বিজ্ঞানীরা এবং ভূতত্ববিদেরা। নানারকম পদ্ধতিতে পরীক্ষানিরীক্ষা করছেন। কিন্তু সেই পা-গুলো কত হাজার বছর আগে হোয়াইট স্যান্ডস পার্ক দিয়ে হেঁটে গিয়েছিল সেটা নির্দিষ্টভাবে বার করতে পারেননি। তবু তাঁরা রোমাঞ্চিত একটা কথা ভেবে যে, হয়ত ২৩ বা ২২ হাজার বছর আগে হোয়াইটস স্যান্ডস দিয়ে হেঁটে গিয়েছিল ৩০ জন মানুষ!