ফেসবুকের মাতৃপ্রতিষ্ঠান – ‘মেটা’

ফেসবুকের মাতৃপ্রতিষ্ঠান – ‘মেটা’

ফেসবুকের নাম পরিবর্তন হবে- গত সপ্তাহ কয়েক এ খবরে হইচই পড়ে গেছলো ভার্চুয়াল জগতে। কী সেই নাম জানা গেল গতকাল অর্থাৎ বৃহস্পতিবার রাতে। একটি ভার্চুয়াল সম্মেলনে সিইও মার্ক জুকেরবার্গ জানান- ফেসবুকের মূল প্রতিষ্ঠানের নাম হবে ‘মেটা’। ফেসবুক নামের যে অ্যাপটি আমরা ব্যবহার করি সে নামটি কিন্তু অপরিবর্তিত। সকলেই জানেন ফেসবুক একটি অ্যাপ। ২০১৯ সালে ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ ইত্যাদি বিভিন্ন অ্যাপকে নিয়ে যে মাদার অর্গানাইজেশন বা মাতৃপ্রতিষ্ঠান গঠন করা হয়েছিল তার নাম দেওয়া হয়েছিল ‘ফেসবুক’। সেজন্যেই আপনি হোয়াটসঅ্যাপে দেখতে পান লেখা রয়েছে- ‘ফ্রম ফেসবুক'(হোয়াটসঅ্যাপ খুলে আপনার অ্যাকাউন্টের সেটিংস অপশানে ক্লিক করলেই দেখবেন একেবারে নিছে লেখা ফ্রম ফেসবুক)। ঐ মাতৃপ্রতিষ্ঠানটির নাম বদল করে রাখা হয়েছে ‘মেটা’। লোগোটি মাটিতে শোয়ানো ইংরেজি আট অক্ষরটির মতো। মেটার অধিনেই থাকবে ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, ইন্সটাগ্রাম ইত্যাদি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলি।
যোগাযোগমাধ্যমগুলি মিলে মেটাভার্স নামের ভার্চুয়াল জগতে রূপান্তরিত হবে- এটাই মূল পরিকল্পনা। কোম্পানির নাম ‘মেটা’ যে ‘মেটাভার্স’ তৈরিরই একটা ইঙ্গিত – জুকেরবার্গ সেকথা বলেন।
নাম পরিবর্তনের সাথে আপাত সম্বন্ধ না থাকলেও ফেসবুক তীব্রভাবে সমালোচনার মুখোমুখি এখন। সংস্থারই কর্মী ফ্রান্সেস হাউগেন সংস্থার আভ্যন্তরীণ এমন অনেক তথ্য ফাঁস করেছিলেন যা সমালোচিতব্য। গত সোমবারই ব্রিটিশ সংসদে হাউগেন বলেছেন, ফেসবুকে খুব সহজে ছড়ায় ঘৃণা ও ক্রোধ।