বহুতল নির্মাণে বন্ধ হবে গ্রিনহাউস গ্যাস নিঃসরণ!

বহুতল নির্মাণে বন্ধ হবে গ্রিনহাউস গ্যাস নিঃসরণ!

গ্লাসগোয় ক্লাইমেট চেঞ্জিং সামিটে বিরল নকশা পেশ করেছে বিশ্বের কয়েকটি নামী স্থপতি সংস্থা। এমনভাবে আকাশচুম্বী বহুতল বাড়ি বানানোর নকশা তারা তৈরি করেছে যেখানে বাড়িগুলোই টেনে নেবে বাতাসের বিষ, মানে কার্বন-ডাই-অক্সাইড! এই আকাশচুম্বী বাড়িগুলো তৈরি করার পরিকল্পনা মূলত শহরগুলোতে। মিশনের নাম দেওয়া হয়েছে আরবান সিক্যুইয়া। গ্লাসগোয় রাষ্ট্রপুঞ্জের তরফে একটি তথ্য পেশ করা হয়েছিল। বলা হয়েছিল প্রত্যেক বছর বাতাসে যে পরিমাণ কার্বন-ডাই-অক্সাইড মিশছে তার ৪০ শতাংশের উৎসস্থল শহরাঞ্চলের বিভিন্ন আকাশছোঁয়া বহুতল ও আবাসন। আর্থিক নিরাপত্তার কারণে বিশ্বের বিভিন্ন শহরে জনসংখ্যা যে হারে বেড়ে যাচ্ছে তাতে আগামী কয়েক দশকে বাড়ির সংখ্যা আরও বেড়ে যাবে এবং তাতে গ্রিনহাউস গ্যাস নিঃসরণও আরও বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা। তাই গ্লাসগোয় সিওপি-২৬ সম্মেলনে পেশ করা নকশায় দেখানো হয়েছে এই বাড়ি বিশেষ কিছু উপাদান দিয়ে বানালে সেগুলো কার্বন-ডাই –অক্সাইড টেনে নেবে। টেনে নেবে মানে প্রত্যেক বছর ১ হাজার টন ওজনের কার্বন-অক্সাইড! ৪৮ হাজার গাছ লাগিয়ে যে পরিমাণ কার্বন-ডাই-অক্সাইড টানতে হত। একইসঙ্গে স্থপতি সংস্থাগুলো এ-ও জানিয়েছে যে, শুধু কার্বন-ডাই-অক্সাইড টেনে নেওয়া নয়, সেই জমা বিষকে শিল্পের উন্নয়নের কাজে লাগানোর প্রযুক্তিও তারা তৈরি করবে। বিশেষ উপাদানগুলোর মধ্যে উল্লেখ্য জৈব ইঁট, বায়োক্রিট, ভারি কাঠ এবং নানা ধরণের শৈবাল। এর উপকার ভারত নিতে পারে কি না সেটাও দেখার!