বিষে পাখির মৃত্যুমিছিল

বিষে পাখির মৃত্যুমিছিল

পাঞ্জাবের পূর্বতন দেশীয় রাজ্য ফরিদকোটে এক হাজারের বেশি পুরোনো আম ও জাম গাছ আছে, যেগুলির বয়স অনেক হলেও প্রতি গ্রীষ্মে এখনও ফল ধরে। আর তখন পাখিদের মধ্যে যেন এক উৎসব শুরু হয়ে যায়। কিন্তু গাছে
বেআইনি রাসায়নিক দ্রব্য ব্যাপকভাবে স্প্রে করার ফলে ওইসব গাছের ফল খেয়ে পাখিদের মৃত্যু ঘটছে বলে স্থানীয় পাখি-নিরীক্ষণকারীরা জানিয়েছেন গত পাঁচ বছরে আড়াই হাজারের বেশি পাখি এইসব গাছের ফল খেয়ে মারা গেছে, যেগুলির মধ্যে অধিকাংশই টিয়া। শঙ্কর শর্মা নামে ফরিদকোট নিবাসী এক পাখি-নিরীক্ষণকারী জানিয়েছেন। শর্মা আরও জানিয়েছেন, শুধুমাত্র গত জুন মাসেই প্রায় ৪০০ পাখির মৃত্যু হয়েছে।
ডেপুটি কমিশনারের অফিসের কম্পাউন্ড, যেখানে অনেক জাম গাছ রয়েছে, সেখানে মৃত পাখির দেহগুলি নজরে আসার পর বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে।
যে পাখিগুলি মারা গেছে সেগুলি টিয়া এবং চড়াই। পরে বক (ব্যাগলাস), পায়রা, এমনি ঈগল আর ময়ূরও খুঁজে পাওয়া গিয়েছে।
২০১৭ সালের গ্রীষ্মে সর্বপ্রথম এই মৃত্যুর ঘটনা লক্ষ্য করা যায়। তারপর থেকে প্রতি বছর এটা একটা নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে এবং এই মৃত্যু রুখতে কোনো সদর্থক পদক্ষেপও করা হচ্ছে না।