বৃষ্টিহীন মাদাগাস্কার!

বৃষ্টিহীন মাদাগাস্কার!

জলবায়ুর পরিবর্তনে বিশ্বের প্রথম দুর্ভিক্ষ! মাদাগাস্কারে ইতিমধ্যে শুরু হয়ে গিয়েছে সে ঘটনা। পূর্ব আফ্রিকার এই ছোট্ট দেশটিতে চার বছর বৃষ্টি নেই! দেশের ৩০ হাজার মানুষ পাচ্ছে না জল, না খাবার! সংবাদমাধ্যমকে ওখানকার এক পরিবার জানিয়েছে, তারা গত আট মাস ধরে পোকামাকড় খেয়ে আছে! দেশের আধ লক্ষেরও বেশি শিশু ইতিমধ্যেই অপুষ্টির শেষ সীমায় পৌঁছে গিয়েছে! সম্মিলিত রাষ্ট্রপুঞ্জের আন্তর্জাতিক খাদ্য সরবরাহ বিভাগের প্রধান শেলি থাকরাল বলেছেন, “পরিস্থিতি অভূতপূর্ব! জলবায়ুর পরিবর্তনে এরকম ভয়ঙ্কর খরা এর আগে কোথাও হয়েছে বলে জানা নেই। কিন্তু এমনটা হওয়ার পেছনে কারণও আছে। দেশের মানুষ বৃষ্টি হওয়ার মতো কাজ কি করেছে কিছু চার বছরে? কিছুই করেনি। এমনকি জীবাশ্ম থেকে যে জ্বালানি বের হয় সেটাও ওরা পোড়ায় না! আজ তারই ফল ভোগ করছে।”
মাদাগাস্কারে খরা হয় না তা নয়। প্রায়ই হয়। কিন্তু চার বছর বৃষ্টি না হওয়া? এল নিনো বিশেষজ্ঞরা বলছেন এত গরম ওখানকার আবহাওয়া যে, বৃষ্টি হয়ই না মোটে। এর জন্য ওয়াটার ম্যানেজমেন্টের উন্নয়ন না করতে পারলে ভবিষ্যতে দেশের মানুষের কপালে আরও দুর্যোগ অপেক্ষা করবে। এই খরার প্রতিফলন দেশের শহরগুলোতেও পড়ছে। গ্রাম থেকে শয়ে শয়ে বাচ্চা, কিশোর, বৃদ্ধরা শহরগুলোতে চলে আসছে, রাস্তায় ভিক্ষে করা শুরু করে দিয়েছে! ওখানকার এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার কর্মী সিনা এনডোর জানিয়েছেন, অদূর ভবিষ্যতেও আশার আলো দেখছেন না তিনি।