বৃহত্তম সামুদ্রিক ‘রিজার্ভ’ ইকুয়েডরের

বৃহত্তম সামুদ্রিক ‘রিজার্ভ’ ইকুয়েডরের

গ্যালাপাগোস দ্বীপপুঞ্জের কাছে বৃহত্তম সামুদ্রিক রিজার্ভ তৈরি করার সিদ্ধান্ত নিল ইকুয়েডর সরকার। উদ্দেশ্য পরিযায়ী প্রজাতির কচ্ছপ, তিমি বা হাঙ্গরকে সংরক্ষণ করা। গতবছর গ্যালাপাগোস দ্বীপপুঞ্জের কাছেই সমুদ্রের ওপর একটি বিশাল চিনা জাহাজ মাছ ধরতে এসেছিল। তারপরই ইকুয়েডর সরকারের এই ভাবনার শুরু। চিনের জাহাজ থামানোর মত শক্তি ইকুয়েডরের নেই। তবে সে দেশের সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, নিজেদের দেশের মৎস্যব্যবসায়ীরা এত বছর ধরে গ্যালাপাগোস দ্বীপপুঞ্জের কাছে সমুদ্রে গিয়ে যে মাছ ধরতে যেত বাণিজ্যিক উদ্দেশ্য নিয়ে সেটা তারা বন্ধ করতে চায়।
মাছ ধরার সময় পরিযায়ী, বিরল প্রজাতির কচ্ছপ, তিমি মাছও ব্যবসায়ীদের জালে ধরা পড়ত। ইকুয়েডরের পরিবেশ মন্ত্রী গুস্তাভো হেনরিক জানিয়েছেন, সেই অবৈধ কাজটা বন্ধ হবে সামুদ্রিক রিজার্ভ তৈরি করা গেলে। ইকুয়েডরে মাছ বিক্রির ব্যবসা সে দেশের অন্যতম বৃহৎ শিল্প। গতবছর ইকুয়েডর মাছ রফতানি করে ১.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার উপার্জন করে।
সামুদ্রিক এই রিজার্ভটির আয়তন হবে ১ লক্ষ ৩৩ হাজার বর্গ কিলোমিটার জুড়ে! এখানে সমস্ত রকমের সামুদ্রিক পরিযায়ী প্রাণীকে সংরক্ষিত করার ব্যবস্থাও রাখা হবে। বিশ্ব জুড়ে উষ্ণায়নের প্রতিফলনে প্রচুর পরিমাণে বিরল প্রজাতির সামুদ্রিক প্রাণীও বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে। গ্যালাপাগোস দ্বীপপুঞ্জের এই সামুদ্রিক রিজার্ভে বিরল প্রজাতির সামুদ্রিক প্রাণীদের যাতে প্রজননও হয়, তার ব্যবস্থাও ইকুয়েডর সরকার রিজার্ভে করার পরিকল্পনা করেছে।