ব্যাকটেরিয়া ব্যবহার করে ভবিষ্যতে দেহের আভ্যন্তরীণ ক্যান্সার নির্ণয় করা যাবে

ব্যাকটেরিয়া ব্যবহার করে ভবিষ্যতে দেহের আভ্যন্তরীণ ক্যান্সার নির্ণয় করা যাবে

মানুষের অন্ত্রে ক্যান্সার হলে, অধিকাংশ সময়ে তা সহজে ধরা পড়েনা, যখন ধরা পড়ে তখন চিকিৎসার জন্য অনেক দেরি হয়ে যায়। সায়েন্সে প্রকাশিত গবেষণা অনুযায়ী, একদল গবেষক দেখিয়েছেন কীভাবে, একটা প্রজাতির ব্যাকটেরিয়া অন্ত্রের ক্যান্সারকে তাড়াতাড়ি সনাক্ত করতে পারে।
আমাদের গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল ট্র্যাক্টে বা অন্ত্রে অসংখ্য ব্যাকটেরিয়ার বাস। বিজ্ঞানীরা প্রোবায়োটিক সেন্সর হিসাবে কাজ করার জন্য ব্যাকটেরিয়ার নির্দিষ্ট স্ট্রেনের প্রাকৃতিক ক্ষমতা ইতিপূর্বে ব্যবহার করার চেষ্টা করছেন। এই ‘বায়োসেন্সর’গুলি ইতিমধ্যেই ইঁদুর এবং শূকরের ক্ষেত্রে অন্ত্রের স্বাস্থ্য পর্যবেক্ষণ এবং অন্ত্রের রক্তপাত, সংক্রমণ এবং লিভারের টিউমার সনাক্ত করার বিষয়ে আশা জাগিয়েছে। Acinetobacter baylyi, নামে একটা ব্যাকটেরিয়া পরিবেশ থেকে ডিএনএ নিষ্কাশিত করার ক্ষমতার জন্য পরিচিত, A. Baylyi তার নিজস্ব জিনোমে ডিএনএ এর অংশগুলিকে একত্রিত করে প্রোটিনে নতুন জেনেটিক তথ্য সরবরাহ করতে পারে। গবেষকরা A. baylyi কে নির্দেশনা দিয়ে সজ্জিত করেছেন যাতে কোলোরেক্টাল ক্যান্সারে পরিবর্তিত নির্দিষ্ট মিউটেশন-বহনকারী ক্রমগুলি খুঁজে বের করা যায়। তারা দেখতে পান A. baylyi কোষ থেকে বহিষ্কৃত ফ্রি-ফ্লোটিং ডিএনএ-তে ক্যান্সার-সৃষ্টিকারী মিউটেশন এবং বিশেষ ক্ষতিকারক নয় এমন জেনেটিক ত্রুটির মধ্যে একক-বেসের পার্থক্য বুঝতে পারে।
গবেষকরা প্রোগ্রামেবল সিস্টেমটি এমনভাবে ডিজাইন করেছিলেন, যাতে A. baylyi যদি কোনো টিউমার ডিএনএ খুঁজে পায়, তাহলে উপাদানটিকে তার নিজস্ব জিনোমে অন্তর্ভুক্ত করে একটি অ্যান্টিবায়োটিক প্রতিরোধী জিন সক্রিয় করে। এটি সক্রিয় হওয়ার পরে, হোস্টের মল থেকে বের হওয়া এ. বেলি আগর প্লেটে বৃদ্ধি করলে অ্যান্টিবায়োটিকযুক্ত ব্যাকটেরিয়া পাওয়া গেলে, সংকেত পাওয়া যায় যে ক্যান্সার কোশ সনাক্ত করা গেছে।
আপাতত, বায়োসেন্সরটি নির্দিষ্ট কেআরএএস মিউটেশন সনাক্ত করার জন্য ডিজাইন করা হয়েছে, যা প্রায় ৪০ শতাংশ কোলোরেক্টাল ক্যান্সারে, এক-তৃতীয়াংশ ফুসফুসের ক্যান্সারে এবং বেশিরভাগ প্যানক্রিয়াস ক্যান্সারে পাওয়া যায়। কেআরএএস মিউটেশন হলে কোশের বৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণে থাকে না, ফলে টিউমার ও ক্যান্সার কোশ তৈরি হতে থাকে। মানুষের মধ্যে A. baylyi-এর সম্ভাব্য ব্যবহারের আগে, গবেষকরা দেখবেন A. baylyi নিরাপদে মৌখিকভাবে খাওয়া যায় কিনা, বা মলের নমুনায় ক্যান্সার কোষগুলি ঠিকমতো সনাক্ত করা যায় কিনা। ধারাবাহিকভাবে A. baylyi ভাসমান টিউমার ডিএনএ সনাক্ত করতে পারলে গবেষকরা আশা করছেন যে এটি অন্ত্রের ক্যান্সার প্রাথমিকভাবে সনাক্ত করতে সক্ষম হবে।