ভূমিকম্পের প্রতিরোধক থার্মোকল!

ভূমিকম্পের প্রতিরোধক থার্মোকল!

ভূমিকম্প হলে হাই-রাইজ বাড়িগুলোকে কীভাবে রক্ষা করা যাবে? সেই নিয়ে অনেক বছর ধরেই চলছে নানারকমের গবেষণা। সাম্প্রতিককালে এই সংক্রান্ত একটি রিসার্চের খবর মিলেছে। রুরকির আইআইটি আর জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয় যৌথভাবে এই গবেষণা করছে। প্রাথমিক সমাধান হিসেবে দেখা গিয়েছে যে হাই-রাইজ বাড়িগুলি তৈরির সময় কংক্রিটের সঙ্গে থার্মোকল মেশাতে পারলে সেটা ভূমিকম্পের সময় উঁচু বাড়িগুলোকে, মানে অন্তত চার তলা বাড়িকে বাঁচাতে সক্ষম হয়ে উঠতে পারে! গবেষকরা এই পরীক্ষা একটি চার তলা বাড়ির ওপর ইতিমধ্যে করেওছেন। বাড়ির দেওয়াল তৈরি করার সময় দেওয়ালে কংক্রীটের দু’টো স্তরের মাঝখানে থার্মোকল দেওয়া হয়েছে। আদিল আমেদ রুরকি আইআইটি-র একজন স্কলার। তাঁরই নেতৃত্বে পরীক্ষাটা হয়েছিল। থার্মোকল দিয়ে বাড়ির দেওয়াল তৈরি করার পর পাশ থেকে বাড়িটির ওপর যথেষ্ঠ পরিমাণে শক্তিও প্রয়োগ করে দেখা হয়েছে। কারণ, গবেষকরা জানিয়েছেন যে ভূমিকম্প সমস্ত কিছুকে ভাঙে পাশাপাশিভাবে। স্বস্তির খবর, রুরকি আইআইটি-র গবেষকরা প্রায় নিশ্চিত যে, থার্মোকল দেওয়া থাকলে, ভূমিকম্পের সময় অন্তত চার তলা বাড়িগুলোকে অক্ষত রাখা যাবে। এমনকী, সিসমিক জোনে থাকা কোনও চার তলা বাড়িও ভূমিকম্পের সময় ভেঙে পড়বে না! গবেষকদের দেওয়া আরও একটা তথ্যে স্বস্তি পেতে পারেন সাধারণ মানুষ। ভূমিকম্প প্রতিরোধ করা ছাড়াও বাড়ির দেওয়ালের ভেতর থার্মোকল দেওয়া থাকলে প্রবল গরমের সময় সেই বাড়ির ঘরগুলো তুলনামূলকভাবে ঠান্ডা থাকবে ওই থার্মোকলের প্রভাবে। এর সঙ্গে গবেষকদের মত, বাড়ি তৈরি করার খরচও অনেক পরিমাণে কমে যাবে। কারণ সিমেন্ট, বালি আর দেওয়াল বানাতে প্রধান যে খরচ সেই লোহার রডের পরিমাণ অনেকটাই কমে যাবে বলে জানাচ্ছেন রুরকি আইআইটি-র গবেষকরা।