মঙ্গল অভিযান সম্ভব চার বছর

মঙ্গল অভিযান সম্ভব চার বছর

নতুনভাবে ঘর বাঁধা যায় কী না সেই লক্ষ্য নিয়েই মানুষের মঙ্গল অভিযান শুরু হয়েছিল। অনেক দেশ উপগ্রহ পাঠিয়েছে। সেই উপগ্রহগুলো নিয়মিত মঙ্গল থেকে পৃথিবীতে ছবিও পাঠিয়ে যাচ্ছে। পৃথিবীর মহাকাশবিজ্ঞানীদের গবেষণা আরও জোরদার করার জন্য, যাতে আদৌ কোনওদিন মঙ্গল মানুষের বাসস্থান হবে কী না সেটা নিশ্চিতভাবে বলা সম্ভব হয়।
কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে মহাকাশে মানুষের থাকার অসুবিধেও কম নয়। মূল অসুবিধে মহাকাশে বিকিরণ। বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, মূলত দু’রকমের বিকিরণ মানুষের কাছে চ্যালেঞ্জিং। এক, সৌর শক্তিকণা (এসইপি)। দুই, গ্যালাক্টিক কসমিক বিকিরণ (জিসিআর)। যুগ যুগ ধরে বিজ্ঞানীদের মধ্যে গবেষণা চলে আসছে এই নিয়ে যে, এই বিকিরণের জন্য মঙ্গলেও মানুষের পক্ষে বেশিদিন থাকা সম্ভব নয়। বিজ্ঞানীদের মতে এই মেয়াদ বড়জোর চার বছর। সূর্য এবং মহাকাশের অন্য গ্রহ থেকে যে বিকিরণ হয় তাতে মানুষের পক্ষে দীর্ঘদিন ধরে মহাকাশে অভিযান চালানো কঠিন। অনেক রকমের প্রযুক্তিগত অসুবিধার মধ্যেও পড়তে হবে মানুষকে। গবেষণা করে এই সিদ্ধান্তে এসেছেন রাশিয়া, জার্মানি এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিজ্ঞানীরা। শুধু প্রযুক্তিগত অসুবিধা নয়, এসইপি আর জিসিআরের প্রভাবে মানুষের অঙ্গপ্রত্যঙ্গেরও ক্ষতি হতে পারে বলে বিজ্ঞানীদের ধারণা।