মশলা মাটি

মশলা মাটি

লোকক্রিড়ায় গাছের পাতার সঙ্গে মাটি মিশিয়ে রান্না করে ছোটো শিশুরা। রান্নাবাটি- সে লোকক্রিড়ার নাম। কিন্তু শুনেছেন কি রান্নাতে সত্যিই মেশানো হয় মাটি? ইরানের পারস্য উপসাগরীয় এক দ্বীপ – নাম হরমুজ দ্বীপ : এই দ্বীপের মাটিই ব্যবহৃত হয় রান্নার মশলা হিসেবে। কারণ  ৪২ বর্গকিলোমিটার আয়তনের এই দ্বীপ অত্যন্ত খনিজসমৃদ্ধ। একারণে এই দ্বীপকে ভূবিজ্ঞানীরা ‘ডিজনিল্যান্ড’ও বলে থাকেন। এই দ্বীপের মাটিতে প্রায় ৭০টি খনিজ পদার্থ রয়েছে। অনেক কোটি বছর আগে হরমুজ দ্বীপের মাটিতে নুনের মোটা আস্তরণ পড়ে সমুদ্রের জলের কারণে। সেই নুনের সঙ্গে আগ্নেয়গিরির লাভার খনিজের বিক্রিয়ায় দ্বীপের মাটিতে নানান বর্ণ দেখা যায়। দ্বীপের মাটিতে মিশে থাকে হেমাটাইট নামে অতিরিক্ত লৌহ অক্সাইড, যা ‘গিল্যাক’ নামেও পরিচিত। খনিজে সমৃদ্ধ হওয়ার জন্যেই এই মাটি ব্যবহৃত হয় রান্নার মশলা হিসেবে। স্থানীয়রা রুটির সঙ্গে মশলা হিসেবে ব্যবহার করেন এই মাটি।৷ ঐ রুটিকে স্থানীয় ভাষায় বলে তোমশি। রান্না ছাড়াও শিল্পক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয় এই দ্বীপের মাটি।
এক সময় এশিয়া ইউরোপের বাণিজ্যে অন্যতম বন্দর হিসেবে ব্যবহৃত হরমুজ দ্বীপ।  নানা গুণাবলির জন্য ‘রেনবো আইল্যান্ড’ নামেই বেশি পরিচিত। তবে কেবল মশলা নয়, বহু বর্ণের সমাহারের জন্যে পর্যটকের আনাগোনাও বেশি রখন এ দ্বীপে।