মানুষের মল থেকেও বিদ্যুৎ উৎপাদনের চেষ্টা!

মানুষের মল থেকেও বিদ্যুৎ উৎপাদনের চেষ্টা!

মানুষের মলও শক্তি উৎস! তাকেও বিদ্যুতে রূপান্তরিত করা যেতে পারে! মানে, ভবিষ্যতে কয়লার প্রয়োজন আর হবে না বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে! মানুষের মল থেকেই সেটা হবে। মজা নয়, সম্প্রতি ইসরায়েলের একদল বিজ্ঞানীদের গবেষণায় এই তথ্য উঠেছে। দেশের বেন-গুরিয়ন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা মানুষের মলের শক্তিকে মহৎ এরকম কাজে রূপান্তরিত করার চেষ্টায় একটি শৌচাগার পর্যন্ত স্থাপন করে ফেলেছেন! গবেষণা শুরু হয়েছিল পোল্ট্রি বর্জ্য দিয়ে। পরবর্তীকালে পরীক্ষাটা মল নিয়ে শুরু করা হয়। প্রথমে এর ভেতরে থাকা জীবাণুকে মেরে ফেলতে অটোক্লেভে গরম করা তাকে শুকনো করে পিষে ফেলা হয়। তারপর তাকে গুঁড়ো করে ল্যাব রিয়্যাক্টরে প্রচণ্ড গরম ও প্রেসারের মধ্যে রেখে শুরু হয়েছিল কালচারিং। সেখানে একটু জল ছাড়া আর বিশেষ কিছু দেওয়া হয়নি। তৈরি হয়েছিল হাইড্রোচার। জল এবং পোড়া বায়োমাসের কণার সংমিশ্রণে সৃষ্ট বাদামি রঙের একটি পদার্থ।
বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, হাইড্রোচার কয়লার বিকল্প হতে পারে এবং সেই কারণে ভবিষ্যতে কয়লা চালিত বিদ্যুৎ শিল্পে সবচেয়ে প্রয়োজনীয় উপাদান হবে হাইড্রোচার। এখনও পরীক্ষামূলকভাবে এই গবেষণা চলছে। কিন্তু সফল হলে ভবিষ্যতে কার্বন-ডাই-অক্সাইড মুক্ত বাতাস পাওয়া যেতেই পারে!