সংঘর্ষ এড়িয়েছিল চন্দ্রযান

সংঘর্ষ এড়িয়েছিল চন্দ্রযান

২০শে অক্টোবর ২০২১। সকাল ১১টা ১৫মিনিট। চাঁদের উত্তর মেরুর কাছে পাক খাচ্ছে দুটি মহাকাশযান – তাও আবার মাত্র ১০০ মিটারেরও কম দূরত্বে। যদিও নিয়মানুযায়ী দুটি মহাকাশযানের মধ্যে ৩ কিলোমিটার দূরত্ব বজায় রাখার কথা। তবুও দুটি যানই এসে পড়েছিল বিপদসীমার কাছাকাছি। একটি ভারতের ইসরোর পাঠানো ‘চন্দ্রযান-২’। অপরটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নাসার পাঠানো ‘লুনার রিকনিস্যান্স অরবিটার’। সংঘর্ষ হতো আর সামান্য ভূলচুকেই। শেষ পর্যন্ত ‘কলিশন অ্যাভয়ড্যান্স ম্যানিউভর’ বা ক্যাম পদ্ধতির প্রয়োগ করে এড়ানো সম্ভব হয় সংঘর্ষ। অক্টোবরের ঘটনা হলে ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইসরো ঘটনা সামনে এনেছে গতকাল অর্থাৎ মঙ্গলবার ১৭ই নভেম্বর ২০২১ তারিখে। ইসরো তাদের বিবৃতিতে জানিয়েছে ঐ সময়টাতে টানা নাসার সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যমেই সংঘর্ষ এড়াতে সক্ষম হয়েছে উভয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা।
চন্দ্রযান-২ কে বলা যেতে পারে ইসরোর আংশিক সফল চন্দ্রযান ল্যাণ্ডার বিক্রম চাঁদের মাটিতে আছড়ে পড়লেও যে অরবিটার বিক্রম এবং রোভার প্রজ্ঞানকে চাঁদের কক্ষপথে পৌঁছে দিয়েছিল সেটি এখনো পাক খাচ্ছে চাঁদকে। প্রতিনিয়ত ইসরোকে সরবরাহ করছে তথ্য ও ছবি। তবে ইসরো চন্দ্রযান -৩ উৎক্ষেপণ করবে জানিয়েছে। করোনা পরিস্থিতির ধাক্কায় আপাতত পরিকল্পনা ২০২২ এর সেপ্টেমবর- ডিসেম্বরের মধ্যেই উৎক্ষেপন করা হবে চন্দ্রযান-৩ কে।