সুপার পটাটো

সুপার পটাটো

বাড়তে থাকা গ্রীনহাউস গ্যাসের প্রভাবে আগামী এক দশকেই ব্যাপক বদল ঘটবে পৃথিবীর জলবায়ুর। তাপমাত্রা অতিরিক্ত বৃদ্ধি, অতিবৃষ্টি এসব দেখা যাবে স্থানে স্থানে। ফলে প্রভাব পড়বে খাদ্যশষ্যের উৎপাদনে। অতিরিক্ত তাপমাত্রাতেও খাদ্যশস্য উৎপাদন স্বাভাবিক কীভাবে রাখা যায় সে নিয়ে গবেষণা চালাচ্ছেন বিজ্ঞানীরা। একাজেই এক বিশেষ ধরণের আলুর প্রজাতি তৈরি করে ফেলেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মাইন ইউনিভার্সিটির একদল বিজ্ঞানী। আলুর প্রজাতিটির নাম দেওয়া হয়েছে সুপার পটেটো। অতিরিক্ত তাপমাত্রাতেও এই আলু উৎপাদন করা যাবে। জলবায়ুর পরিবর্তন এই আলু উৎপাদনে ও গুনমানে প্রভাব ফেলতে পারবে না। খাদ্যশস্য বিজ্ঞানী গ্রেগোরি পোর্টার বলেন, বাড়তে থাকা তাপমাত্রা ও কঠিন জলবায়ু খাদ্যশস্যের গুনমানের ক্ষেত্রে সমস্যা তৈরি করবে। অতিরিক্ত বৃষ্টি, বন্যা পরিস্থিতি আলু উৎপাদনের পক্ষে প্রতিকূল। ফলে যদি আগের মতোই আলু উৎপাদন করতে হয় তবে জলবায়ু পরিবর্তন সহ্য করতে পারে এমন আলু উৎপাদন করতে হবে। সেই লক্ষ্যেই তৈরি হয়েছে সুপার পটেটো। ইতিমধ্যেই আমেরিকার বিভিন্ন প্রদেশে সুপার পটেটো উৎপাদনের পরীক্ষা-নীরিক্ষা চলছে। ভার্জিনিয়া, ফ্লোরিডা ইত্যাদি প্রদেশে অতিরিক্ত তাপমাত্রায় ফলানো হয়েছে এই আলু। মাইন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা জানিয়েছেন বিশ্বের বাজারে আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে মিলবে এই আলু।