১৭৮ বছর পর দার্জিলিং – এ স্যাটির ট্র‍্যাগোপান

১৭৮ বছর পর দার্জিলিং – এ স্যাটির ট্র‍্যাগোপান

১৭৮ বছর পর দার্জিলিংয়ের সেঞ্চল ওয়াইল্ডলাইফ স্যানিচুরিতে দেখা গেল স্যাটির ট্র‍্যাগোপান (Satyr tragopan)। ‘স্যাটির ট্র্যাগোপান’ পাখি ‘ক্রিমসন হর্নড ফিজ্যান্ট’ নামেও পরিচিত। বিলুপ্তপ্রায় প্রজাতির পাখির ফের দেখা পাওয়ায় উচ্ছ্বসিত বন আধিকারিক থেকে কর্মীরা।
স্যাটায়ার ট্র‍্যাগোপান মূলত হিমালয়ের বুকে থাকা ঘন জঙ্গলের পাখি। নেপাল, ভুটান ও দার্জিলিং এলাকাতেই বেশি দেখা মেলে এদের। গ্রীষ্মে এই পাখি হিমালয়ের ২৪০০-৪২০০ মিটার উচ্চতায় দেখা যায়। যদিও শীতে ১৮০০ মিটার উচ্চতায় দেখা যায়। দার্জিলিং ওয়াইল্ড লাইফ ডিভিশনের ডিএফও সুরত্ন শেরপা বলেন, “আমরা খুব খুশি। ১৭৮ বছর পর ফের একবার ট্র‍্যাগোপানের দেখা মিলেছে। উপস্থিতির চিহ্ন স্বরূপ ছবি ও ভিডিয়ো রাখা হয়েছে। আমরা আরও নিশ্চিত করতে অভয়ারণ্যে আরও ক্যামেরা বসানোর কাজ শুরু করেছি।” নেপাল, ভুটান ও দার্জিলিংয়ের সিঙ্গালিলা জাতীয় উদ্যান যেকোনো জায়গা থেকেই ওই তিন পাখি আসতে পারে বলে ধারণা বন আধিকারিকদের।
অভয়ারণ্যে পাখির দেখা পওয়া গেছে একথা নিশ্চিত হওয়ার পর গোপনে ক্যামেরা বসানো হয় পাখির উপস্থিতি রেকর্ড করার জন্যে। দেখা যায় একটা নয়, তিনটি পুরুষ স্যাটির ট্র্যাগোপানের দেখা মিলেছে বলে জানিয়েছেন আধিকারিকরা। করোনার কারণে প্রায় দুবছর পর্যটন বন্ধ থাকার কারণে ও লকডাউন ইত্যাদি মিলে পরিবেশের স্বাভাবিক অবস্থা ফিরেছে অনেকটাই। আর সেই কারণেই ওই বিলুপ্তপ্রায় প্রজাতির পাখির ফের আগমন হয়েছে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা৷