১৮ বছর পর রহস্য উন্মোচন ৬ ইঞ্চি কঙ্কালের

১৮ বছর পর রহস্য উন্মোচন ৬ ইঞ্চি কঙ্কালের

২০০৩ সালে চিলির আটাকামা মরুভূমিতে পাওয়া গিয়েছিলো  মাত্র ৬ ইঞ্চি সাইজের একটি (মানব!) কঙ্কাল। অস্কার মুনো নামের এক ব্যক্তি চিলির লা নোরিয়ায় ধনসম্পদ খুঁজতে গিয়ে এই অদ্ভুত দর্শন কঙ্কালটি খুঁজে পান। কঙ্কালটির নাম দেওয়া হয়েছিল ‘আটা’। কঙ্কালটির মাথা ছিল শঙ্কু আকৃতির। দেহের ছিল মাত্র ১০টি পাঁজর। কিন্তু মানুষের মতো দেখতে অথচ এত ছোটো আকৃতির কঙ্কাল এলোই বা কোত্থেকে? কৌতুহলের শেষ ছিলনা গত ১৮ বছর।
এমনিতেই আমাদের আকাশগঙ্গা ছায়াপথ ছাড়াও অন্য কোনো গ্যালাক্সিতে প্রাণের অস্তিত্ব আছে কিনা – এ নিয়ে কৌতুহলের শেষ নেই। বিজ্ঞান থেকে কল্পবিজ্ঞান- মানুষের কল্পনায় মানুষের চেয়েও উন্নত প্রাণীর অস্তিত্ব নিয়ে গল্পের ইতি নেই। কিন্তু  বিজ্ঞানীরা আটাকামার এই অতিক্ষুদ্র আকৃতির কঙ্কালের রহস্য উন্মোচন করাতে দেখা গেল, ভিন গ্রহের প্রাণীর কঙ্কাল আদতে নয় এটি। কঙ্কালটি আসলে একটি শিশুর। আনুমানিক ৪০ বছর আগে যার মৃত্যু হয়। জিনগত সমস্যার জন্যেই  হাড়ের বিকাশ ঘটেনি।  সে কারণেই শরীর এমন বিকৃত গঠন লাভ করে। এবং সম্ভবত জন্মের পরেই মৃত্যু ঘটে শিশুটির- বলেই ধারণা করেছেন বিজ্ঞানীমহল। ফলে ভিন গ্রহের প্রাণীর জল্পনা সম্পূর্ণ অলীক বলেই প্রমাণিত এক্ষেত্রে।